- Advertisement -

টেকনাফে দেয়াল ধসে ৪ জনের মৃত্যু

কক্সবাজারের টেকনাফ হ্নীলায় মাটির ঘরের দেওয়াল চাপা পড়ে একই পরিবারের ৪ জন নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার (১৬ নভেম্বর) রাতে উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের মৌলভীবাজার ১ নম্বর ওয়ার্ড মরিচ্যাঘোনা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহতদের মধ্যে আছে এক ছেলে, দুই মেয়ে ও তাদের মা৷ নিহতদের পরিচয় টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ড মৌলভী বাজার মরিচ্যাঘোনার ফকির আহমদের স্ত্রী আনোয়ারা বেগম (৫০), ছেলে সাইদুল মোস্তফা (২০), দুই মেয়ে নিলুপা বেগম (১৮) ও সাদিয়া বেগম (১১)। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন টেকনাফের হ্নীলা ইউপি চেয়ারম্যান রাশেদ মাহমুদ আলী।

তিনি জানান, মাটির ঘরের দেওয়াল চাপা পড়ে একই পরিবারের চার সদস্য মারা গিয়েছে। রাতে দীর্ঘক্ষণ বৃষ্টি হওয়ায় মাটির ঘরের দেওয়াল ধসে পড়ে৷ এতে ঘুমন্ত অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়েছে।

টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ওসমান গণি বলেন, খবর পেয়ে পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে পরে জানানো হবে বলে জানান তিনি। প্রতিবেশীদের বরাত দিয়ে স্থানীয় প্রাথমিক স্কুলের শিক্ষক নুর মোহাম্মদ আশিক বলেন, ‘দরিদ্র পরিবার হিসেবে ফকির মোহাম্মদ তার মাথাগোঁজার ঠাঁই হিসেবে ঝুপড়ি ঘরটি মাটির দেয়াল তুলছিল। ওপরে পলিথিন দিয়ে নির্মাণাধীন ঘরের মাঝখানে রাত্রিযাপন করতেন পরিবারের সবাই। চারপাশের দেয়াল প্রায় উঠে গিয়েছিল। এরই মাঝে বুধবার রাত হতে বৃহস্পতিবার সারাদিন এবং রাতেও টানা গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি হচ্ছিল। সেই বৃষ্টিতে মাটির দেয়াল হয়তো আবারও কাঁচা হয়ে যায়। অনেকে বলছেন রাতে হালকা ভূমিকম্পও হয়েছে। এ সময় হয়তো মাটির দেয়াল ধসে ঘুমন্ত মা-মেয়ে ও ছেলে চাপা পড়ে। ফজরের আজানের পর বিষয়টি সবার নজরে আসে।’

হ্নীলার ১ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার বশির আহমদের বরাত দিয়ে চেয়ারম্যান রাশেদ বলেন, ‘নিম্নচাপের প্রভাবে বৃহস্পতিবার সারাদিন গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি হচ্ছে। শুক্রবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে মরিচ্যাঘোনায় ফকির আহমেদের মাটির তৈরি ঘরের মাটির দেয়াল চাপা পড়ে তার স্ত্রী, দুই মেয়ে ও এক ছেলে- মোট চারজন নিহত হয়েছেন। বৃষ্টি চলতে থাকায় দুর্ঘটনাস্থলে যাওয়ার রাস্তা কর্দমাক্ত রয়েছে।’

টেকনাফের ইউএনও মো. আদনান চৌধুরী বলেন, ‘বাড়ির দেয়াল ধসে মাটি চাপায় হ্নীলায় একই পরিবারে চারজনের মর্মান্তিক মৃত্যুর ঘটনাস্থলে যাচ্ছি আমরা। বৃষ্টির কারণে কাঁদায় ভরে থাকায় সড়ক দিয়ে চলাচল কষ্টসাধ্য হচ্ছে। নিহতের পরিবারে প্রশাসনিক সহযোগিতা দেয়া হবে।’
মন্তব্য লিখুন

Your email address will not be published.

প্রতিনিয়ত সি এন এন ঢাকার সর্বশেষ খবর মোবাইলে নোটিফিকেশন পেতে.. হ্যা বিস্তারিত