- Advertisement -

হাটহাজারীতে বাস-সিএনজির মুখোমুখি সংঘর্ষে ৭ জন নিহত

চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে বাসের সঙ্গে সিএনজিচালিত অটোরিকশার সংঘর্ষে সাতজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও তিনজন। মঙ্গলবার (৭ নভেম্বর) বেলা পৌনে ১২টার দিকে উপজেলার চারিয়া ইজতেমার মাঠ এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন হাটহাজারী ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন মাস্টার মো. শাহজাহান।  নিহতদের মধ্যে তিনজন নারী, একজন পুরুষ ও তিন শিশু রয়েছে। তাৎক্ষণিকভাবে তাদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি। নিহতরা সবাই সিএনজিচালিত অটোরিকশার আরোহী ছিলেন। স্থানীয়রা জানান, বাসটি খাগড়াছড়ি থেকে ছেড়ে এসে চট্টগ্রামের অভিমুখে যাচ্ছিল। অন্যদিকে সিএনজিটি যাচ্ছিল নাজিরহাটের দিকে। এ সময় হাটহাজারীর চারিয়া এলাকায় পৌঁছালে বাস ও সিএনজির মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে দুমড়ে মুচড়ে যায় সিএনজিটি। এতেই ৭ জনের মৃত্যু হয়। আহত হন আরও তিনজন। তাদেকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। চট্টগ্রাম রেঞ্জ ডিআইজি নূরে আলম মিনা জানান, বেলা পৌনে ১২টার দিকে খাগড়াছড়ি থেকে চট্টগ্রাম আসছিল মারসা পরিবহনের একটি বাস। কিন্তু চারিয়া এলাকায় হাটহাজারী থেকে ফটিকছড়িগামী যাত্রীবাহী সিএনজি অটোরিকশাটির সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। দ্রুতগতির বাসের সঙ্গে সংঘর্ষের কারণে সিএনজিচলিত অটোরিকশাটি অনেক দূরে গিয়ে ছিটকে পড়ে। এসময় অটোরিকশার আরোহীরা রাস্তার ওপর আছড়ে পড়ে। এ সময় বাস এবং ছিটকে পড়া অটোরিকশার ধাক্কায় তিনজন পথচারী গুরুতর আহত হয়। তিনি আরও জানান, আহতদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। দুর্ঘটনার কারণে আধা ঘণ্টা ওই সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকে বলে জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা।  হাটহাজারী ফায়ার সার্ভিসের টিম লিডার সাদেক হাসান বলেন, চারিয়া ইজতেমার মাঠ এলাকায় চট্টগ্রামমুখী বাসের সঙ্গে বিপরীত থেকে আসা সিএনজিচালিত অটোরিকশার সংঘর্ষ ৭ জন নিহত হয়েছেন। তাদের নামপরিচয় জানা যায়নি। উদ্ধার কাজ চলমান রয়েছে। হাটহাজারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কর্মকর্তা রশ্মি চাকমা বলেন, দুর্ঘটনায় মারা যাওয়া সাতজনের মরদেহ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনা হয়েছে। মরদেহগুলো পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এছাড়া কয়েকজন আহত আছেন। যাদের অবস্থা গুরুতর তাদের চমেক হাসপাতালে পাঠানো হচ্ছে। হাটহাজারী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামান বলেন, ‘আমরা ঘটনার খবর পেয়ে ছুটে আসি। মরদেহ উদ্ধার করি। আহতদের হাসপাতালে পাঠাই। এখন পর্যন্ত আহত ও নিহতদের পরিচয় পাওয়া যায়নি।’

মন্তব্য লিখুন

Your email address will not be published.

প্রতিনিয়ত সি এন এন ঢাকার সর্বশেষ খবর মোবাইলে নোটিফিকেশন পেতে.. হ্যা বিস্তারিত