- Advertisement -

ফিলিস্তিনে মৃতের সংখ্যা ৮ হাজারের কাছাকাছি

গত ৭ অক্টোবর থেকে গাজায় ইসরায়েলি হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৭৯৫০ জনে দাঁড়িয়েছে।  রামাল্লার ফিলিস্তিনি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এই তথ্য জানিয়েছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নিহতদের প্রায় তিন-চতুর্থাংশ (৭৩%) শিশু, নারী এবং বয়স্ক মানুষসহ দুর্বল জনগোষ্ঠীর। এছাড়া ইসরায়েলি হামলায় ২০ হাজারেরও বেশি মানুষ আহত হয়েছে।

নিহতদের মধ্যে ১১৬ জন চিকিৎসা কর্মী রয়েছে। ইসরায়েল অনেক হাসপাতালে হামলা করেছে। পূর্ববর্তী এক আপডেটে ফিলিস্তিনি মন্ত্রণালয় বলেছিল, উত্তর গাজার ২৪টি হাসপাতাল, যার সম্মিলিত ক্ষমতা ২০০০ শয্যা রয়েছে, হাসপাতালগুলো খালি করতে বলা হয়েছে।

ফিলিস্তিনি সশস্ত্র গোষ্ঠী হামাসের সামরিক শাখা আল-কাসেম ব্রিগেডস জানিয়েছে, গাজা উপত্যকায় প্রবেশ করা ইসরায়েলি সেনাদের বিরুদ্ধে তীব্র লড়াইয়ে লিপ্ত হয়েছে তাদের যোদ্ধারা।

এ ব্যাপারে রোববার (২৯ অক্টোবর) এক বিবৃতিতে আল-কাসেম ব্রিগেডস বলেছে, ‘গাজার উত্তরপশ্চিমাঞ্চলে মেশিন গান এবং ট্যাংক বিধ্বংসী অস্ত্র নিয়ে ইসরায়েলি দখলদার সেনাদের বিরুদ্ধে আমাদের যোদ্ধারা তীব্র লড়াই করছে।’

এর আগে এক বিবৃতিতে হামাস জানিয়েছিল, তাদের হামলায় ইসরায়েলের দুটি ট্যাংকে আগুন ধরার ঘটনা ঘটেছে। তবে ইসরায়েলি সেনাবাহিনী হামাসের এ দাবির ব্যাপারে এখন পর্যন্ত কোনো মন্তব্য করেনি।

রোববার সন্ধ্যায়ও গাজার ভেতর তীব্র বিমান হামলা চালিয়ে যাচ্ছিল ইসরায়েলি বিমান বাহিনী। সঙ্গে চলছিল কামান হামলা। অপরদিকে ট্যাংক নিয়ে স্থল হামলা চালাচ্ছিল সেনাবাহিনী।
ইসরায়েলি সেনাবাহিনী দাবি করেছিল, রোববার ইরিজ শহরের কাছে একটি সুড়ঙ্গ থেকে বের হয়ে তাদের উপর অতর্কিত হামলা চালিয়েছিল হামাসের যোদ্ধারা। কিন্তু যারা হামলা চালিয়েছিল তাদের সবাইকে হত্যা করা হয়েছে।

রোববার দিনের শুরুতে ইসরায়েলি প্রতিরক্ষা বাহিনী (আইডিএফ) জানিয়েছিল, তারা গাজায় নতুন করে আরও সেনা পাঠিয়েছে। দীর্ঘ অপেক্ষার পর গত শুক্রবার গাজার ভেতর ট্যাংক নিয়ে প্রবেশ করে ইসরায়েলি সেনারা। ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু জানিয়েছেন, গাজায় তাদের অভিযান দীর্ঘ ও লম্বা হবে।

 

মন্তব্য লিখুন

Your email address will not be published.

প্রতিনিয়ত সি এন এন ঢাকার সর্বশেষ খবর মোবাইলে নোটিফিকেশন পেতে.. হ্যা বিস্তারিত