- Advertisement -

অবরোধেও গণপরিবহন চালানোর সিদ্ধান্ত মালিক সমিতির

বিএনপি-জামায়াতের ডাকা তিন দিনের অবরোধ কর্মসূচিতে গণপরিবহন চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতি।

সোমবার (৩০ অক্টোবর) বিকেলে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে মালিক-শ্রমিকদের যৌথসভায় এমন সিদ্ধান্ত হয়। পরে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্যাহর গণমাধ্যমে সংবাদ বিজ্ঞপ্তি পাঠিয়ে গণপরিবহন চালানোর সিদ্ধান্তের কথা জানান।


এক দিনের হরতালে পালন শেষে গতকাল রোববার তিন দিনের অবরোধ কর্মসূচি ঘোষণা করে বিএনপি। ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী ৩১ অক্টোবর এবং ১ ও ২ নভেম্বর রেলপথ, নৌপথ, রাজপথ সর্বাত্মক অবরোধের ঘোষণা দেয় দলটি।

বিএনপির অবরোধ কর্মসূচির পরদিন জামায়াতে ইসলামীও অবরোধ কর্মসূচি ঘোষণা করে। তারাও বিএনপি ষোষিত তিন দিন একই কর্মসূচি পালন করার কথা জানায়।

এমন পরিস্থিতিতে পরিবহন চলাচল করবে কিনা এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে বৈঠকে বসে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতি। সেখানে গণপরিবহন চালানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

বিকেলে সমিতির মহাসচিবের পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, মঙ্গলবার থেকে টানা তিন দিন সারাদেশে সড়ক-রেল-নৌপথ অবরোধ কর্মসূচির ব্যাপারে জরুরি আলোচনা করার জন্য বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে মালিক-শ্রমিকদের যৌথসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় বিএনপির ডাকা মঙ্গল, বুধ ও বৃহস্পতিবারের অবরোধ উপেক্ষা করে ঢাকাসহ সারা দেশে পণ্য ও যাত্রী পরিবহন চলাচল অব্যাহত থাকবে বলে সর্বসম্মতিক্রমে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।



সে মোতাবেক মঙ্গলবার থেকে টানা তিনদিন ঢাকাসহ সারাদেশে পণ্য ও যাত্রী পরিবহন চলাচল স্বাভাবিক রাখার জন্য সারাদেশের পরিবহন মালিক-শ্রমিকদেরকে অনুরোধ জানানো হয়।

অবরোধের দিনগুলোতে গাড়ি চলাচলে যাতে কোনো প্রকার বাধাগ্রস্ত না হয় সেজন্য ঢাকাসহ জেলা শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করতে সংশ্লিষ্ট পুলিশ প্রশাসনকে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন

Your email address will not be published.

প্রতিনিয়ত সি এন এন ঢাকার সর্বশেষ খবর মোবাইলে নোটিফিকেশন পেতে.. হ্যা বিস্তারিত