- Advertisement -

মহাখালীতে আগুনে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩

রাজধানীর মহাখালীর খাজা টাওয়ারে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় রফিকুল ইসলাম (৬২) ও আকলিমা রহমান (৩০) নামে আরও দুজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে তিনজনে।

এর আগে, বৃহস্পতিবার বিকেলে খাজা টাওয়ারে ১৪তলা ভবনের ১৩ তলায় আগুন লাগে।

মৃত রফিকুলের ছেলে নাজমুস সাকিব জানান, তার বাবা একজন প্রকৌশলী। খাজা টাওয়ারের ১৩ তলায় সাইফ পাওয়ার টেকে প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

 

জানা গেছে, রফিকুল ইসলামকে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে জরুরি বিভাগে নিয়ে আসেন। সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর রাত ১২টা ২০ মিনিটে তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তার বাসা মিরপুর ১ নম্বর সেকশনের শাহ আলীবাগ সলিমুল্লাহ মার্কেট রোডে। তার বাবা নাম মৃত শফিউদ্দিন।

এ ছাড়া ঘটনাস্থল থেকে আকলিমাকে উদ্ধার করে ঢামেকের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসলে রাত সোয়া একটার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর তাকে মৃত ঘোষণা করেন। কুমিল্লা জেলার দেবীদ্বার উপজেলার সৈয়দপুর গ্রামের মোকলেসুর রহমানের মেয়ে আকলিমা।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক মো. বাচ্চু মিয়া বলেন, মরদেহ দুটি ঢামেক হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে।

এর আগে, ভবন থেকে নামতে গিয়ে তার ছিঁড়ে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। তার নাম হাসনা হেনা (২৭)। তিনি ওই ভবনে অরবিট নামের একটি ইন্টারনেট সার্ভিস কোম্পানির সেলসে কাজ করতেন। তার বাড়ি গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে।

কোম্পানিটির ডেপুটি ম্যানেজার নাজমুল হুদা জানান, হাসনা হেনা ৯ তলায় কাজ করতেন। আগুনের আতঙ্কে ইন্টারনেটের তার ধরে গ্রিল টপকে নামার সময় তার ছিঁড়ে পড়ে যান।

মন্তব্য লিখুন

Your email address will not be published.

প্রতিনিয়ত সি এন এন ঢাকার সর্বশেষ খবর মোবাইলে নোটিফিকেশন পেতে.. হ্যা বিস্তারিত