- Advertisement -

আরও বাড়ার আশঙ্কা স্বর্ণের দাম

যুক্তরাষ্ট্রের নিম্নমুখী হচ্ছে মুদ্রা ডলার এবং বন্ড ইল্ড। অন্যদিকে ভারতে ধীরে ধীরে স্বর্ণের চাহিদা বাড়ছে। ফলে চলতি বছরের চতুর্থ প্রান্তিকে নিরাপদ আশ্রয় ধাতুটির দাম আরও বাড়তে পারে। জার্মানির বিশ্ব বিখ্যাত আর্থিক প্রতিষ্ঠান হেরিয়াসের রিপোর্টে এ আশঙ্কা করা হয়েছে।

কানাডাভিত্তিক প্রভাবশালী সংবাদমাধ্যম কিটকোর এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য পাওয়া গেছে। এতে বলা হয়, আগামী নভেম্বরে মার্কিন কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভের (ফেড) সুদের হার বাড়ানোর সম্ভাবনা ব্যাপক কমেছে। সেটা সত্যি হলে  বুলিয়ন মার্কেটে তেজ বাড়বে।

বিশ্লেষকরা উল্লেখ করেন, শিগগিরই ইউএস ইল্ড আরও নিম্নমগামী হবে। পাশাপাশি দেশটির কারেন্সি ডলারের মান অধিক কমবে। কারণ, ইতোমধ্যে ফেডের কর্মকর্তাদের বিবৃতিতে সামনে সুদের হার আর না বাড়ানোর আভাস মিলেছে। স্বভাবতই স্বর্ণের দর বৃদ্ধি পাবে।

তারা বলছেন, আলোচ্য ত্রৈমাসিকে ভারতে স্বর্ণের চাহিদা শক্তিশালী হবে। নেপথ্য কারণ দেশটিতে দিওয়ালির মতো বড় উৎসব শুরু হচ্ছে। একই সঙ্গে ভারতীয় মুদ্রা রুপির দরপতন ঘটছে। পাশাপাশি আর্থিক স্বচ্ছলতা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

হেরিয়াসের বিশেষজ্ঞরা আরও বলেন, ফিলিস্তিন ও ইসরায়েল যুদ্ধ অব্যাহত রয়েছে। ক্রমশ তা মধ্যপ্রাচ্যের অন্যান্য দেশে ছড়িয়ে পড়ার শঙ্কা জেগেছে। স্বাভাবিকভাবেই স্বর্ণের মূল্য বৃদ্ধি পাবে। কারণ, অর্থনৈতিক সংকট ও রাজনৈতিক অস্থিরতার মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ ধাতুটির চাহিদা বেড়ে যাবে। যে কারণে একে দুঃসময়ের বন্ধু ধাতু বলা হয়।

বর্তমানে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম স্থির হয়েছে প্রায় ১৯৩৬ ডলারে। মধ্যপ্রাচ্যে উত্তেজনা বাড়লে সেটা ১৯৫০ ডলার ছাড়িয়ে যাবে।

মন্তব্য লিখুন

Your email address will not be published.

প্রতিনিয়ত সি এন এন ঢাকার সর্বশেষ খবর মোবাইলে নোটিফিকেশন পেতে.. হ্যা বিস্তারিত